পুঁজিবাদ হচ্ছে মানবেতিহাসে পণ্য সম্পর্কের সামাজিক স্তর

পুঁজিবাদ

উৎপাদনের উপকরণের ব্যক্তিগত মালিকানা ও পুঁজি কর্তৃক ভাড়াটে শ্রমের শোষণের ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠিত সামাজিক-অর্থনৈতিক গঠনরূপ হচ্ছে পুঁজিবাদ (ইংরেজি: Capitalism)। এটি ইতিহাসের একটি সামাজিক স্তর। এই ব্যবস্থায় উৎপাদনের লক্ষ্য থাকে বিক্রয়, দ্রব্যের ব্যবহার করা নয়। বাজার এখানে শ্রমশক্তিকে পণ্য হিসেবে কেনা বেচার ব্যবস্থা করে এবং এই কেনাবেচায় অর্থ, মজুরি ও বেতন থাকে মাধ্যম। সামাজিক প্রয়োজন বা সম্পত্তি-নিরপেক্ষ … Read more

পুঁজি হচ্ছে উৎপাদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় উপাদানসমূহের একটি

পুঁজি (ইংরেজি: Capital) হচ্ছে উৎপাদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় উপাদানসমূহের একটি উপাদান। সম্পদ বৃদ্ধির জন্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে জমি, যন্ত্র, শ্রম এবং পুঁজি এই চারটি উপাদান প্রধান। ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে ‘পুঁজি’ শব্দ দ্বারা নতুন পণ্য ক্রয়ের আর্থিক সামর্থ্য বোঝায়। এরূপ অর্থে পুঁজি বলতে কেবল টাকা নয়, মালিকের মালিকানাধীন দালানকোঠা, জমি, যন্ত্রপাতি এবং অন্যান্য দ্রব্যসামগ্রী বোঝাতে পারে।[১] মার্কসবাদী অর্থনৈতিক ব্যাখ্যায় … Read more

কার্ল মার্কসের বিচ্ছিন্নতার তত্ত্ব মানব প্রকৃতি নিয়ে আলোচনা করে

মার্কসের বিচ্ছিন্নতার তত্ত্ব

কার্ল মার্কসের বিচ্ছিন্নতার তত্ত্ব (ইংরেজি:Theory of alienation) জনগণের বিচ্ছেদকে (ইংরেজি: estrangement, জার্মান: Entfremdung) মানব প্রকৃতির বিশেষ দিক হিসেবে আলোচনা করে এবং বলে যে বিচ্ছিন্নতা সামাজিক শ্রেণিতে স্তরীভূত সমাজে বসবাস করার একটি পরিণতি। মার্কস পুঁজিবাদী সমাজের দুই প্রধান ত্রুটি শোষণ ও বিচ্ছিন্নতার ধারণা দিয়েছেন। ব্যক্তিমালিকানার ওপর প্রতিষ্ঠিত পুঁজিবাদে সমাজের অর্থনৈতিক বৈষম্য থেকেই হয় শোষণের সৃষ্টি এবং … Read more

মার্কসবাদী বিশ্বদৃষ্টিতে ধর্মের স্বরূপ বিশ্লেষণ

ধর্মের স্বরূপ

কার্ল মার্কস ও ফ্রিডরিখ এঙ্গেলসের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত প্রলেতারিয় বিশ্বদৃষ্টিভঙ্গির ভিত্তি হচ্ছে প্রকৃতি এবং সমাজ বিকাশের নিয়মাবলীর আবিষ্কার ও অনুশীলন। প্রকৃতিবিজ্ঞান ও সমাজবিজ্ঞানের আলোচনায় মার্কসবাদ যেসব ক্ষেত্রে ধর্ম সংক্রান্ত আলোচনার প্রয়োজনবোধ করেছে শুধু সেসব আলোচনা থেকেই মার্কসবাদী দৃষ্টিতে ধর্মের বিশ্লেষণ পাওয়া যায়। ধর্মকে মার্কসবাদের স্রষ্টাগণ বিশিষ্ট বা স্বতন্ত্র কোনো বিষয় মনে করেননি। বরং তাঁরা এটিকে মনে … Read more

মার্কসবাদী দৃষ্টিতে ইতিহাস হচ্ছে সমাজের অবস্থা ও সম্পর্কের বিশ্লেষণী পদ্ধতি

মার্কসবাদী দৃষ্টিতে ইতিহাস

মার্কসবাদী দৃষ্টিতে ইতিহাস (ইংরেজি: History from Marxist point of view) হচ্ছে যে কোনো সময়ের বাস্তব অবস্থা, নানা শর্ত, বিভিন্ন সম্পর্কের অন্তর্ভেদ করার বিশ্লেষণী পদ্ধতি। ইতিহাস বিষয়ে এঙ্গেলসের দক্ষতা ছিলো মার্কসের চেয়ে বিস্তৃত। মার্কস তাই বলেছিলেন যে, ইতিহাসের বস্তুবাদী ধারনায় এঙ্গেলস একেবারে নিজস্ব পদ্ধতিতে পৌঁছেছিলেন। এঙ্গেলস কিন্তু বলেছেন, ‘মানুষের ইতিহাসের বিকাশের নিয়ম’ মার্কসের দুটি মূল্যবান আবিষ্কারের … Read more

মার্কসীয় তত্ত্বের মূলনীতি হচ্ছে মার্কসের রচনায় অনুসৃত কতিপয় মৌলিক নীতি

মার্কসীয় তত্ত্বের মূলনীতি

মার্কসীয় তত্ত্বের মূলনীতি (ইংরেজি: Basic Principles of Marxism) হচ্ছে কার্ল মার্কসের রচনায় অনুসৃত কতিপয় মৌলিক নীতি। মার্কসবাদী তত্ত্বের কিছু মূল নীতি আছে, যেগুলোকে তিনি কখনও বাদ দেননি। মার্কসীয় তত্ত্বের মূলনীতি হিসেবে সাধারণত কয়েকটি নীতি বিশেষভাবে বিবেচিত হয়। এগুলো যথাক্রমে হলো ১. দ্বান্দ্বিক বস্তুবাদ, ২. ঐতিহাসিক বস্তুবাদ, ৩. মানুষ সংক্রান্ত তত্ত্ব, ৪ বিচ্ছিন্নতা তত্ত্ব, ৫ সাম্যবাদ … Read more

ঐতিহাসিক বস্তুবাদ হচ্ছে সমাজ জীবনে দ্বান্দ্বিক বস্তুবাদের মূলনীতিগুলোর প্রয়োগ

ঐতিহাসিক বস্তুবাদ

ঐতিহাসিক বস্তুবাদ (ইংরেজি: Historical materialism) বা ইতিহাসের বস্তুবাদী ধারনা (ইংরেজি: Materialist conception of history) হচ্ছে সমাজ বিকাশের সর্বাধিক সাধারণ নিয়মাবলী ও চালিকাশক্তি সম্পর্কিত তত্ত্ব এবং মার্কসবাদী-লেনিনবাদী দর্শনের অঙ্গীভূত অংশ। এক কথায় সমাজজীবনের অনুশীলনে দ্বান্দ্বিক বস্তুবাদের মূলনীতিগুলোর প্রয়োগকে বলা হয় ঐতিহাসিক বস্তুবাদ। সামাজিক জীবনধারা এবং সমাজ ও সমাজের ইতিবৃত্তের বিচারে দ্বান্দ্বিক বস্তুবাদের মূলনীতিগুলোর প্রয়োগ ও ব্যবহারকে … Read more

উদ্বৃত্ত মূল্য তত্ত্ব হচ্ছে মার্কসবাদের অর্থনৈতিক উপাদান

উদ্বৃত্ত মূল্য তত্ত্ব

উদ্বৃত্ত মূল্য তত্ত্ব (ইংরেজি Theory of Surplus Value) রয়েছে মার্কসবাদের অর্থনৈতিক মতবাদের মূলে। ভি আই লেনিন একে মার্কসের অর্থনৈতিক মতবাদের ভিত্তিপ্রস্তর বলে আখ্যায়িত করেন। মার্কসবাদের প্রধান রাজনৈতিক অর্থনীতি বিষয়ক রচনা পুঁজি গ্রন্থে এই তত্ত্ব উদঘাটিত হয়েছে। কার্ল মার্কসের মতবাদ অনুসারে, উদ্বৃত্ত মূল্য হচ্ছে শ্রমিকের নিজের শ্রম দ্বারা সৃষ্ট তাঁদের শ্রম-দামের থেকে তুলনামূলকভাবে বেশি নতুন মূল্যের … Read more

বিপ্লবের মার্কসবাদী তত্ত্ব হচ্ছে আজ পর্যন্ত উঠে আসা সব থেকে স্পষ্ট বৈপ্লবিক চিন্তা

বিপ্লবের মার্কসবাদী তত্ত্ব

বিপ্লবের মার্কসবাদী তত্ত্ব বা বিপ্লবের মার্কসীয় তত্ত্ব (ইংরেজি: Marxist theory of Revolution) সম্ভবত আজ পর্যন্ত উঠে আসা সব থেকে স্পষ্ট বৈপ্লবিক চিন্তা। মার্কসবাদীদের মতে বিপ্লব হলো একটি ঐতিহাসিক প্রক্রিয়া যা সামাজিক পরিবর্তনের পথকে প্রশস্ত করে এবং যার মাধ্যমে শাসকশ্রেণির উচ্ছেদ ঘটে ও নতুন প্রগতিশীল শাসকশ্রেণির উদ্ভব ঘটে।[১] উনিশ শতকের পুঁজিবাদী উৎপাদনের অমানবিক দিকটার ফলে কার্ল … Read more

বিপ্লব কেন হয় বা বিপ্লব সংঘটিত হবার কারণ প্রসঙ্গে

বিপ্লব কেন

বিপ্লব কেন হয় বা বিপ্লব সংঘটিত হবার কারণ (ইংরেজি: Causes of Revolution) বুঝতে হলে বিপ্লবের সংজ্ঞা থেকে শুরু করা যেতে পারে। বিপ্লবের কারণ তার সংজ্ঞার সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে যুক্ত। চারটি বিপ্লবের সাদৃশ্য বিবেচনা করে ক্রেন ব্রিন্টন The Anatomy of Revolution (১৯৬৫) গ্রন্থে বিপ্লবের একটি তত্ত্ব গড়ে তোলেন। বিপ্লবগুলি হলো ইংল্যান্ডের বিপ্লব (১৬৪০), মার্কিন বিপ্লব (১৭৭৬), ফরাসি … Read more

error: Content is protected !!