একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি — পীতাম্বর দাসের রচিত বাংলা দেশপ্রেমের গান

একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি বা ক্ষুদিরামের ফাঁসি হচ্ছে বাংলা দেশাত্মবোধক গানের মধ্যে একটি খুবই উল্লেখযোগ্য গান। গানটির গীতিকার ও সুরকার বাঁকুড়ার লোককবি পীতাম্বর দাস সরল লৌকিক ঝুমুর বাউল সুরে গানটি রচনা ও সুরারোপ করেন। গানটি ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা সংগ্রামী মহান বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর (৩ ডিসেম্বর, ১৮৮৯ – ১১ আগস্ট, ১৯০৮) আত্মদানকে সম্মান জানিয়ে রচিত হয়। তৎকালীন সময়ে গানটি খুব জনপ্রিয় হয় এবং সারা বাংলায় লোকজনের মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়ে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশে ক্ষুদিরাম বসু এখনো বিশেষ সম্মানের সঙ্গে আলোচিত ও স্মরিত হন। ক্ষুদিরামকে নিয়ে লেখা এই গানটি বাংলার কৃষকগণ এখনো মনোযোগের সাথে গেয়ে থাকেন। ক্ষুদিরাম বসুর ফাঁসি উপলক্ষে প্রথম পুরুষে আখ্যান কবিতার আকারে এই দ্ব্যর্থবোধক গানটি রচিত হয়েছিল। এটি শুনলে মনে হয় ক্ষুদিরাম একাধারে নিজের মা এবং দেশজননীর কাছে বিদায় চাইছেন।

১৯৬৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সুভাষচন্দ্র চলচ্চিত্রে এই গানটি ব্যবহার করা হয়েছিল। সেখানে গানটির নেপথ্য শিল্পী ছিলেন ভারতের প্রতিক্রিয়াশীল জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী লতা মঙ্গেশকর। লতার গানটি সারা বাংলার জনগণ তীব্র আবেগের সাথে বিশ শতক জুড়েই শুনতে থাকে। নাগরিক জীবন থেকে গ্রামীণ জীবন পর্যন্ত গানটি ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়। এই গানটির বাণী ও সুর আজও সমানভাবে জনপ্রিয়। মর্মস্পর্শী এই দেশাত্মবোধক গানটি পরবর্তীতে গণসংগীতের মর্যাদা লাভ করেছে। এছাড়া পীতাম্বর দাসের আর একটি জনপ্রিয় লোকসংগীত হলো ‘বন মাঝে রাধা’।

একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি গানের কথা

একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি,
হাসি হাসি পরব ফাঁসি দেখবে জগৎবাসী।।

কলের বোমা তৈরি করে
দাঁড়িয়ে ছিলেম রাস্তার ধারে মাগো,
বড়লাটকে মারতে গিয়ে
মারলাম আরেক ইংল্যান্ডবাসী।।

আরো পড়ুন:  আমার আঁধার ঘরের প্রদীপ যদি নাইবা জ্বলে, কণ্ঠ-মালার বকুল যদি যায় গো দ’লে

শনিবার বেলা দশটার পরে
জজকোর্টেতে লোক না ধরে, মাগো
হল অভিরামের দ্বীপ চালান মা ক্ষুদিরামের ফাঁসি।
দশ মাস দশদিন পরে
জন্ম নেব মাসির ঘরে, মাগো
তখন যদি না চিনতে পারিস দেখবি গলায় ফাঁসি।।

আরো পড়ুন অনুপ সাদির প্রবন্ধ ক্ষুদিরাম বসু বাঙলার অগ্নিযুগের মহান বিপ্লবী

গানটি ইউটিউবে শুনুন নিচের ক্লিক করে

লতা মঙ্গেসকরের কণ্ঠে গানটি বিখ্যাত হয়েছিল

বি দ্র. লেখাটি রচনাকাল ৩ ডিসেম্বর ২০১৭ এবং সেদিনই রোদ্দুরে.কমে প্রকাশিত হয়। ফুলকিবাজে প্রকাশের সময় ঈষৎ পরিবর্তন করা হয়েছে।

Leave a Comment

error: Content is protected !!