She Dwelt Among the Untrodden Ways কবিতার মূল বক্তব্য ও মূল্যায়ন

ইংরেজ রোমান্টিক কবি উইলিয়াম ওয়ার্ডসওয়ার্থ এর “She Dwelt Among the Untrodden Ways” কবিতাটি একটি ক্ষুদ্র গীতিকবিতা! একে “The Lucy Poem”-ও বলা হয়। কবিতাটিতে কবি লুসি নামের এক নারীর মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন। উত্তর ইংল্যান্ডের Grasmere গ্রামের পাশের Cumbria County’s Lake District এর আশে পাশে তার বসবাস ছিল বলে কবি উল্লেখ করেছেন। এখানে একটি কুঁড়েঘর ভাড়া নিয়ে কিছুদিন থেকে ছিলেন কবি।

লুসি বনের ধারে নির্জন কোণে বসবাস করত। তাকে কেউ চিনত না বললেই চলে। তাই তার সুন্দর রূপের প্রশংসা করার বা তাকে ভালোবাসার কেউ ছিল না। লুসি যেন ছিল একটি লতা ফুলের মতো, যে ফুল পাথরের আড়ালে অর্ধ ঢাকা অবস্থায় থাকে, যা মানুষের চোখে ধরা পড়ে না বললেই চলে। তার রূপ ছিল সন্ধ্যাতারা ভেনাসের মতো, যে তারা পশ্চিম দিগন্তে একাকী আলো ছড়ায়। লুসি বনের কোণে একাকী বসবাস করত। তাকে খুব কম লোকেই চিনত। লুসি মারা গিয়েছিল একাকী। তার মৃত্যুর খবরও কম সংখ্যক লোকেই জানত। আজ লুসি কবরে শুয়ে আছে। কবির থেকে সে আজ বহু দূরে চলে গেছে। তাকে ফেলে গেছে যন্ত্রণার গভীর সমুদ্রের মাঝে।

এভাবে উক্ত কবিতায় কবি এক অজানা, অচেনা মেয়ের রূপের বর্ণানার সাথে সাথে তার মৃত্যু নিয়ে শোক প্রকাশ করেছেন। অনেকে মনে করেন লুসি হচ্ছে একটি রহস্যময় চরিত্র। হতে পারে এই লুসি হচ্ছে কবির বোন ডরোথী। এই দৃষ্টিতে হয়তো এখানে লুসির প্রকৃতির সাথে মিলে মিশে থাকার কথা বলেছেন কবি। হতে পারে, এখানে কবি ডরোথীর ভবিষ্যতের মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন। লুসি হতে পারে Peggy Hutchinson বা Margaret যাকে কবি একদা ভালোবাসতেন। পিগি ছিলেন ওয়ার্ডসওয়ার্থের স্ত্রীর বোন। এই কবিতাটি রচনার পূর্বে পিগি ১৭৯৬ সালে মৃত্যুবরণ করেছিলেন। হতে পারে লুসি কোনো কাল্পনিক চরিত্র যে বনের মাঝে একাকী বাস করত এবং একাকী নির্জনেই মরে যায়। উক্ত কবিতায় কবি লুসির শারীরিক বৈশিষ্ট্য নিয়ে আলোচনা করেছেন এবং সেই সাথে তার মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন। লুসি হতে পারে কোনো কাল্পনিক রূপসী যুবতী নারী যে গ্রাম্য নির্জন এলাকায় একাকী বাস করত। সে একাকী খোঁজ-খবরহীন অসহায় মানুষের প্রতীক। 

কবিতায় বর্ণিত এই লুসি নামের মেয়েটি যে-ই হোক না কেন কবি এখানে তার মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন। তিনি গোপনে গোপনে তাকে ভালোবাসতেন। কিন্তু সেই ভালোবাসার কথা কেউ জানত না। আজ লুসি তাকে ছেড়ে চলে গেছে বহু দূরে। কবি আজ যন্ত্রণায় কারত হয়ে একাকী হয়ে গেছেন।

কবিতার ইংরেজি কথা

She dwelt among the untrodden ways
Beside the springs of Dove,
A Maid whom there were none to praise
And very few to love:

A violet by a mossy stone
Half hidden from the eye!
—Fair as a star, when only one
Is shining in the sky.

She lived unknown, and few could know
When Lucy ceased to be;
But she is in her grave, and, oh,
The difference to me!

আরো পড়ুন:  সাহিত্য হচ্ছে মানুষের চিন্তাভাবনা ও অনুভূতির লিখিত অথবা মুদ্রিত বিষয়

শব্দার্থ

স্তবক-১ 

dwelt: বাস করা, থাকা, বসবাস করা। 
untrodden ways: এমন পথ যে পথে কেউ হাঁটেনি বা হাঁটেনি বললেই চলে। 
the springs of Dove: ডাভ নামের নদী;
A Maid: একজন কুমারী। এখানে লুসির কথা বলা হয়েছে। লুসি বনের ধারে এক নির্জন জায়গায় বাস করত। তাকে খুব কম সংখ্যক লোকেই চিনত।
there were none to praise: যেখানে কেউ ছিল না প্রশংসা করার। অর্থাৎ, লুসি বনের ধারে একাকী নির্জনে বসবাস করার কারণে তাকে কেউ চিনত না। তার রূপের প্রশংসা করার মতোও কেউ ছিল সেখানে। 
very few to love: খুবই কম লোকেই ভালোবাসত। অর্থাৎ, লুসিকে না চিনার কারণে খুব কম লোকেই তার রূপের প্রশংসা করত। তাই তাকে ভালোবাসার মতো কেউ ছিল না কেবল কবিকে ছাড়া। 
She Dwelt Among the Untrodden Ways ….. few to love: কবি এখানে লুসি নামের এক যুবতীর জীবন গাথার বর্ণনা দিয়েছেন। লুসি বনের ধারে নির্জন কোণে বসবাস করত। তাকে কেউ চিনত না বললেই চলে। তাই তার সুন্দর রূপের প্রশংসা করার বা তাকে ভালোবাসার কেউ ছিল না।

স্তবক-২ 

A violet: ভায়োলেট। এটি একপ্রকার লতানো গাছের ফুল; আমাদের দেশের লতাফুল গাছের মতো কোনো গাছ বিশেষ।
mossy stone: শৈবাল বা শেওলা যুক্ত কোনো পাথর।
A violet by a mossy stone: শেওলা যুক্ত পাথরের আড়ালে থাকা একটি লতা ফুল। 
Half hidden from the eye: চোখের আড়ে অর্ধ লুকায়িত অবস্থায়। একটি পাথরের আড়ালে থাকা কোনো লতা ফুলের মতোই যেন ছিল লুসি। তাকে কেউ দেখতে পেত না বললেই চলে। 
Fair as a star: তারার মতো সুন্দর। এখানে লুসিকে সন্ধ্যা তারা ভেনাস এর সাথে তুলনা করা হয়েছে যে তারা সন্ধ্যাবেলায় একাকী পশ্চিমা আকাশে ঝলমল করে আলো ছড়ায়। কারণ সুন্দর রূপ নিয়ে লুসিও বনের ধারে একাকী বাস করত। 
only one: Venus, which appears alone after sunset. shining: আলো ছড়ানো বা ঝলমল করে জ্বলা। 
A violet by ……in the sky: লুসি যেন ছিল একটি লতা ফুলের মতো যে ফুল পাথরের আড়ালে অর্ধ ঢাকা অবস্থায় থাকে যা মানুষের চোখে ধরা পরে না বললেই চলে। তার রূপ ছিল সন্ধ্যাতারা ভেনাসের মতো যে তারা পশ্চিমা দিগন্তে একাকী আলো ছড়ায়। 

কবিতাটির সম্পর্কে ইউটিউবে অনুপ সাদির বিশ্লেষণ দেখুন

স্তবক-৩ 

She lived unknown: অজানা অবস্থায় বাস করত সে। অর্থাৎ, লুসি এমন এক জায়গায় বাস করত যে, তার কথা কেউ জানত না বললেই চলে।
ceased: ত্যাগ করা, ক্ষান্ত হওয়া, বিরাম, থামানো, আর না চালানো, শেষ হওয়া।
ceased to be: ‘মারা যাওয়া’ অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে।
few could know When Lucy ceased to be: খুব কম সংখ্যক লোকেই লুসির মৃত্যু সম্পর্কে জানত। 
Lucy: লুসি হচ্ছে একটি রহস্যময় চরিত্র। হতে পারে এই লুসি হচ্ছে কবির বোন ডরোথী। এই দৃষ্টিতে হয়তো এখানে লুসির প্রকৃতির সাথে মিলে মিশে থাকার কথা বলেছেন কবি। হতে পারে, এখানে কবি ডরোথীর ভবিষ্যতের মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন। লুসি হতে পারে Peggy Hutchinson বা Margaret যাকে কবি একদা ভালোবাসতেন। পিগি ছিলেন ওয়ার্ডসওয়ার্থের স্ত্রীর বোন। এই কবিতাটি রচনার পূর্বে পিগি ১৭৯৬ সালে মৃত্যুবরণ করেছিলেন। হতে পারে লুসি কোনো কাল্পনিক চরিত্র যে বনের মাঝে একাকী বাস করত এবং একাকী নির্জনেই মরে যায়। উক্ত কবিতায় কবি লুসির শারীরিক বৈশিষ্ট্য নিয়ে আলোচনা করেছেন এবং সেই সাথে তার মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন।
But: কিন্তু, শুধু, মাত্র, শুধু মাত্র, কেবল মাত্র, কেবল, ছাড়া, ইত্যাদি। 
grave: কবর, কবরস্থান। 
The difference: পার্থক্য, অন্তর, মতের অমিল, বিতর্ক, বিয়োগফল, অনৈক্য। এখানে ‘যন্ত্রণায় দূরে পরে থাকা’ অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে। কারণ লুসি মারা যাবার কারণে কবি যেন যন্ত্রণাকাতর । আজ লুসিকে ছেড়ে তিনি একা হয় গেছেন। লুসি তাকে ছেড়ে আজ বহু দূরে চলেগেছে।
The difference to me: আমার যন্ত্রণায় রেখে গেছে বহু দূরে। 
She lived unknown……difference to me: লুসি বনের কোণে একাকী বসবাস করত। তাকে খুব কম লোকেই চিনত। লুসি মারা গিয়েছিল একাকী। তার মৃত্যুর খবরও কম সংখ্যক লোকেই জানত। আজ লুসি কবরে শুয়ে আছে। কবির থেকে সে আজ বহু দূরে চলে গেছে। তাঁকে ফেলে গেছে যন্ত্রণার গভীর সমুদ্রের মাঝে।

আরো পড়ুন:  ছোটগল্পের উদ্ভব ও ক্রমবিকাশের ইতিহাস শুরু ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রথমার্ধে

কাব্যিক মূল্যায়ন বা সংক্ষিপ্ত আলোচনা

উইলিয়াম ওয়ার্ডসওয়ার্থ এর “She Dwelt Among the Untrodden Ways” নামক ক্ষুদ্র গীতিকবিতাটিকে  “The ‘Lucy Poem”-ও বলা হয়। কবিতাটি সাবলীল ভাষায় লেখা একটি গীতি কবিতা। কবিতাটি তিনটি স্তবকে বিভক্ত। এখানে প্রতিটি প্যারায় প্রথম লাইনের সাথে তৃতীয় এবং দ্বিতীয় লাইনের সাথে চতুর্থ লাইনের অন্তমিল দেখা যায়। কবিতাটির ছন্দ হচ্ছে abab, cdcd, efef। কবিতাটি iambic tetrameter এবং iambic trimeter মিশ্রণ করে লেখা হয়েছে।

এই ব্যালাড বা গাঁথা কবিতাটিকে অনেকে একে ক্ষুদ্র এলিজি বলে থাকেন। যদিও ব্যালাডে বীরত্বপূর্ণ পৌরাণিক কাহিনীর বিবরণ থাকে, এই কবিতায় তেমন কিছু আমরা দেখি না। তবে কবিতাটির ভাষার সারল্য লুসির সহজ জীবন এবং নিরহঙ্কার কাজের দিকে জোর দেয়। কবিতাটিতে কবি লুসি নাম্নী এক সুন্দরী যুবতীর মৃত্যু নিয়ে শোক প্রকাশ করেছেন।

উত্তর ইংল্যান্ডের Grasmere গ্রামের পাশের Cumbria County’s Lake District এর আশে পাশে লুসির বসবাস ছিল, যে এলাকায় কবি একটি কুড়েঘর ভাড়া নিয়ে কিছুদিন থেকেছিলেন। লুসি অজানা অবস্থায় সবার অগোচরে থেকেই মারা যায়। কবি তার মৃত্যুর মাধ্যমে সেই সব লোকদের তুলে ধরেছেন যারা অনাদরে, অচেনা, অজানা অবস্থায় বসবাস করে এবং অজানা থেকেই মারা যায়, যাদের খোঁজ খবর কেউ রাখে না।

প্রথম অনুচ্ছেদে কবি সহজ-সরল ভাষায় লুসির জীবনগাথার বর্ণনা দিয়েছেন। প্রথম স্তবকে লুসির বসবাসের স্থানের বর্ণনার সাথে তার পরিচয় পাওয়া যায়। লুসি বনের ধারে নির্জন কোণে বসবাস করত। তাকে কেউ চিনত না বললেই চলে। তাই তার সুন্দর রূপের প্রশংসা করার বা তাকে ভালোবাসার কেউ ছিল না। প্রথম অনুচ্ছেদের ভাষা খুব সহানুভূতি উদ্রেককারী এবং বোঝা যায় লুসি ভালবাসা পাবার প্রত্যাশা করে। কবিতার ভাষার প্রতিটা প্রতীক দেখায় যে লুসি দূরের নিঃসঙ্গ নারী।

দ্বিতীয় স্তবকে তার দৈহিক রূপের বর্ণনা মেলে। লুসি যেন ছিল একটি লতা ফুলের মতো যে ফুল পাথরের আড়ালে অর্ধ ঢাকা অবস্থায় থাকে যা মানুষের চোখে ধরা পড়ে না বললেই চলে। তার রূপ ছিল সন্ধ্যাতারা ভেনাসের মতো যে তারা পশ্চিমা দিগন্তে একাকী আলো ছড়ায়। Fair as star উপমাটি লুসির দৃষ্টিনন্দন সৌন্দর্য ও রঙের সংকেত দেয়।

আরো পড়ুন:  "স্বপ্নের পাখিরা ওড়ে যৌথ খামারে" কাব্যগ্রন্থের আলোচনা

এবং শেষ স্তবকে লুসি মৃত্যু সংবাদ পাওয়া যায়। লুসি মারা গিয়েছিল একাকী। তার মৃত্যুর খবরও কম সংখ্যক লোকেই জানত। grave এবং cease শব্দ দুটি দিয়ে তার শক্তিহীন থেমে যাওয়া ফুটে ওঠে। আজ লুসি কবরে শুয়ে আছে। কবির থেকে সে আজ বহু দূরে চলে গেছে। তাকে ফেলে গেছে যন্ত্রণার গভীর সমুদ্রের মাঝে। জীবন ও থেমে যাওয়া দিয়েই এটি একটি আধুনিক Ballad হয়ে উঠেছে, যেখানে এক সাধারণ সুন্দরী হয়ে গেছেন মহানায়িকা।

এভাবে উক্ত কবিতায় কবি এক অজানা, অচেনা মেয়ের রূপের বর্ণানার সাথে সাথে তার মৃত্যু নিয়ে শোক প্রকাশ করেছেন। অনেকে মনে করেন লুসি হচ্ছে একটি রহস্যময় চরিত্র। হতে পারে এই লুসি হচ্ছে কবির বোন ডরোথী। এই দৃষ্টিতে হয়তো এখানে লুসির প্রকৃতির সাথে মিলে মিশে থাকার কথা বলেছেন কবি। হতে পারে, এখানে কবি ডরোথীর ভবিষ্যতের মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন। লুসি হতে পারে Peggy Hutchinson বা Margaret যাকে কবি একদা ভালোবাসতেন। পিগি ছিলেন ওয়ার্ডসওয়ার্থের স্ত্রীর বোন। এই কবিতাটি রচনার পূর্বে পিগি ১৭৯৬ সালে মৃত্যুবরণ করেছিলেন। হতে পারে লুসি কোনো কাল্পনিক চরিত্র যে বনের মাঝে একাকী বাস করত এবং একাকী নির্জনেই মরে যায়। উক্ত কবিতায় কবি লুসির শারীরিক বৈশিষ্ট্য নিয়ে আলোচনা করেছেন এবং সেই সাথে তার মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন। লুসি হতে পারে কোনো কাল্পনিক রূপসী যুবতী নারী যে গ্রাম্য নির্জন এলাকায় একাকী বাস করত। সে একাকী খোঁজ খবরহীন অসহায় মানুষের প্রতীক। 

কবিতায় বর্ণিত এই লুসি নামের মেয়েটি যে-ই হোক না কেন কবি এখানে তার মৃত্যু নিয়ে বিলাপ করেছেন। তিনি গোপনে গোপনে তাকে ভালোবাসতেন। কিন্তু সেই ভালোবাসার কথা কেউ জানত না। আজ লুসি তাকে ছেড়ে চলে গেছে বহু দূরে। কবি আজ যন্ত্রণায় কারত হয়ে একাকী হয়ে গেছেন। 

এতটা ক্ষুদ্র পরিসরেও যে এলিজি বা শোকগাঁথা রচনা করা যায় এই কবিতায় তিনি তা দেখিয়েছেন। যদিও কবিতাটি মাত্র তিনটি স্তবকে রচিত হয়েছে তবুও এটি পাঠক সমাজে একটি সার্থক শোকগাঁথা হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে ।

তথ্যসূত্র

কল্যাণী ব্যানার্জী সম্পাদিত ও সৈয়দ আহমেদ রুবেল অনূদিত, নির্বাচিত ইংরেজি রোমান্টিক কবিতা, দি বুক সেন্টার, ঢাকা, প্রথম প্রকাশ জুলাই ২০১৬, পৃষ্ঠা ১৯৯-২০০।

রচনাকাল: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, কুরপাড় নেত্রকোনা।

Leave a Comment

error: Content is protected !!